জেনে নিন কিভাবে একজন ডক্টর স্মার্ট ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং এর সহায়তায়
ডিজিটালী শূণ্য থেকে নিজের ব্র্যান্ড-ভ্যালু, গুড-উইল বৃদ্ধির পাশাপাশি উনার চিকিৎসা সেবাসমুহ
লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে পৌছে দিয়ে কিভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠছেন।

আসুন আপনার সাথে সংক্ষেপে সেই অভিজ্ঞতায় শেয়ার করি।

একদিন একটি ফোন কল পেলাম উনি বললেন আমি ডাঃ সুমীত রঞ্জন বসাক
স্পেশালিস্ট ডেন্টাল সার্জন এন্ড অর্থোডোন্টিস্ট। আমি চিন্তা করছি আমার ব্যক্তিগত ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং করাবো আপনারা আমাকে কিভাবে সহযোগিতা করতে পারবেন?

আমরা সরাসরি মিটিং করলাম। উনার বিস্তারিত চাওয়া পাওয়া ও চিকিৎসাসেবা সম্পর্কে ধারণা নিলাম। ডিল ক্লোজ করে অফিসে ফিরে টিমের সাথে মিটিং করে আমরা একটি স্মার্ট মার্কেটিং প্লান তৈরি করলাম।

স্মার্ট মার্কেটিং সম্পর্কে একটু ধারণা না দিলে অন্যায় হয়ে যাবে।

স্মার্ট মার্কেটিং একটা মার্কেটিং অ্যাপ্রোচ যা এআই ড্রিভেন মার্কেটিং, ট্র্যাডিশনাল মার্কেটিং, ডিজিটাল মার্কেটিং টুল, মার্কেটিং প্রিন্সিপাল, কাস্টমারের চাহিদা এবং লং টার্ম ভিশনের এক অনন্য সমন্বয়।

বলে রাখা ভালো গত প্রায় ১৪ বছর আন্তর্জাতিকভাবে আমরা টোটাল ওয়েব সল্যুশন নিয়ে সুনামের সাথে কাজ করছি। বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য ডিজিটাল মার্কেটিং, ইউ-আই/ইউ-এক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট, অ্যাপস ডেভলপমেন্ট, ভিডিও ইডিটিং, গ্রাফিক ডিজাইন ও এনিমেশন/মোশন গ্রাফিক ইত্যাদি। এক জায়গায় সকল সেবা। আমাদের রয়েছে সকল বিষয়ে আলাদা আলাদা এক্সপার্ট এবং ন্যূনতম ৫-১০ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন টিম।

১৭ মে, ২০২৩ সালে উনার প্রফেশনাল ফেইসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েট করি। কয়েকদিনের ব্যাবধানে অন্যান্য সোস্যাল প্লাটফর্মেও উনার প্রোফাইল তৈরি করে
প্রফেশনালী অপটিমাইজ করে আমরা প্লানিং মাফিক কাজ করতে থাকি। মেইন ফোকাস
থাকে ফেইসবুক পেইজ নিয়ে।

৩ মাস পর থেকেই স্যার আমাদেরকে নিশ্চিত করেন সবকিছু সুন্দরমত চলছে এবং প্রচুর পরিমানে রেসপন্স পাচ্ছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। বিশেষ করে কনটেন্ট দেখে মানুষ ভীষণ উপকৃত হচ্ছেন একই সাথে চিকিৎসা সেবা নিতে প্রাথমিক পরামর্শ এবং অনেকেই চিকিৎসা সেবা নেওয়া শুরু করেছে। শুরু হলো নতুন চ্যালেঞ্জ! এই ধারাবাহিকতা ধরে রেখে সামনের দিকে আগানো।

মনে রাখবেন,
ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং একটি চলমান প্রক্রিয়া অল্প দিনের প্লানিং করে শুরু করা বা টেস্ট করে দেখি কি হয় এমন চিন্তা থেকে শুরু না করাই বরং বেশি উত্তম। এতে করে ব্র্যান্ডিং এ উপকারের চেয়ে ক্ষতি বেশি হয়।

কনটেন্ট প্লানিং, মার্কেটিং অ্যাপ্রোচটা এমন হতে হবে যেন, আপনার ব্র্যান্ড-ভ্যালু বৃদ্ধি পায়,
আপনার গুডউইল বৃদ্ধি পায়, প্রচুর মানুষের কাছে আপনার চিকিৎসা সেবা সংক্রান্ত তথ্য পৌছে যায় এবং আপনার কনটেন্ট দেখে, শুনে, পড়ে যেন মানুষ উপকৃত হয়।

এই বিষয়গুলো মাথায় রেখে অভিজ্ঞ টিমের সমন্বয়ে নিয়মিতভাবে কাজ করে গেলে নিশ্চিতভাবেই আপনি বেনিফিট নিতে পারবেন।

গত কয়েকদিন আগে স্যারকে বললাম স্যার প্রায় ৯ মাস হয়ে গেছে আপনি আমাদের থেকে ডিজিটাল ব্যান্ডিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং সেবা নিচ্ছেন। আমরা কতটুকু আপনাকে সন্তুষ্ট করতে পেরেছি সেবা দিয়ে তা কি একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে জানতে পারি?

উনি বলেছিলেন সময় বের করে একটি ভিডিও ফিডব্যাক দিবো।
নিজেই দেখুন উনি কি বলেছেন।

আমরা জানি আপনারা অনেকেই ব্যক্তিগত ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং শুরু করতে চান কিন্তু সঠিক ও নির্ভর/ট্রাস্ট করার মত ব্যক্তি/এজেন্সি/প্রতিষ্ঠান না পাবার কারণে কনফিউশনে পড়ে যান বিশেষ করে ট্রাস্ট করতে না পারা বড় কারণ ফলে সঠিকভাবে শুরু করতে দেরি হয়ে যাচ্ছে। আমরা অনুরোধ করবো আমাদের সাথে সরাসরি বসুন বিস্তারিত জেনে নিন একজন ডাক্তারের কেন ডিজিটাল ব্র্যান্ডিং ও ডিজিটাল মার্কেটিং প্রয়োজন এবং তা কোথা থেকে নিবেন।

আমরা একটি চমৎকার পৃথিবীতে বাস করছি। বর্তমান যুগে আমাদের পক্ষে যতো বেশি লক্ষ্য অর্জনের সুযোগ ও সম্ভাবনা রয়েছে তেমনটি আর কখনো ছিলো না।

এতো বেশি সংখ্যক সম্ভাবনা থেকে সঠিক সুযোগটি বেছে নেওয়াটাই আসল চ্যালেঞ্জ। আমাদের থেকে সেবা নিতেই হবে এমন নয় বরং আগে যাচাই করুন আমরা রেজাল্ট ড্রিভেন সেবা নিশ্চিত করতে পারবো কিনা আর এই যাচাইয়ের জন্যই আপনার জন্য স্পেশাল একটি অফার রয়েছে আমাদের কাছে। অফারটি জানতে সামনে এগিয়ে চলুন।

আসুন একটি ছোট্ট ডিল করি। আমাদের সম্পর্কে ভালোমত জানতে ও বুঝতে এর থেকে সেরা ডিল আর পাবেন না।

আপনার প্রফেশনাল ফেইসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেল ক্রিয়েশন, অপটিমাইজেশন, উভয় প্লাটফর্মের জন্য প্রফেশনাল কভার ডিজাইন এবং ফেইসবুক পেজের জন্য একটি ব্যানার পোস্ট তৈরি করে পাবলিশ করে দিবো।

 
২৫ মার্চের মধ্যে আপনি উপরোক্ত ডিলটি পেতে পারেন ১০০% ডিসকাউন্টে। শর্ত থাকবে ৫টি।
  1. ১। আপনার চিকিৎসা সেবা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্যসহ চলে আসতে হবে আমাদের অফিসে। অফিসে আসার পরে আপনার ১.৩০ ঘন্টার মত সময় লাগবে।
  2. ২। অবশ্যই আসার আগে দিন ও সময় সিডিউল করে আসতে হবে।
  3. ৩। সবকিছু বুঝে পাবেন পরবর্তী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে।
  4. ৪। আগে আসলে আগে ভিত্তিতে প্রথম ৫০ জন এই সুযোগ পাবেন।
  5. ৫। শুধুমাত্র ডক্টর নিজে এই অফার পেতে রেজিষ্ট্রেশন ও যোগাযোগ করবেন।

বি:দ্র: ২৫ মার্চের আগেই সুযোগটি গ্রহণ করতে হবে। ২৫ মার্চের পরে হলে আপনাকে ১৫,০০০ টাকা পেমেন্ট দিয়েই উপরোক্ত সেবা নিতে হবে।

আপনি কি উপরের সুযোগটি পেতে আগ্রহী? তাহলে অল্পকিছু তথ্যসহ রেজিষ্ট্রেশন করুন আমাদের প্রতিনিধি আপনার সাথে দ্রুতই যোগাযোগ করে আপনাকে পরিপূর্ণভাবে সহযোগিতা করবেন। গুগল রেজিষ্ট্রেশন লিংক:

  rajibraj